নদী রক্ষায় আইন প্রয়োগের দাবি

লেখক: সকাল বেলা ডেস্ক
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

রাজধানীর বুড়িগঙ্গাসহ দেশজুড়ে দূষণ ও দখলের কবলে থাকা সব নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ ফিরিয়ে আনতে আইন প্রয়োগের দাবি জানিয়েছে পরিবেশবাদী ছাত্র-যুব সংগঠন গ্রিন ভয়েস।

সোমবার (১৪ মার্চ) আন্তর্জাতিক নদীকৃত্য দিবসে আয়োজিত যুব সমাবেশ থেকে এই দাবি জানায় সংগঠনটি।দিবসটি উপলক্ষে নৌকা মিছিলেরও আয়োজন করা হয়। সকাল ৮টায় রাজধানীর সদরঘাট এক নম্বর টার্মিনালে এই সমাবেশ ও পরবর্তীতে নৌকা মিছিল করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) যুগ্ম সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, গ্রিন ভয়েসের কেন্দ্রীয় নেতা তরিকুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম টুকন, আরিফুর রহমান, শাকিল কবির, সাচিনু মারমা, গ্রিন ভয়েস বহ্নি শিখার নারী নেত্রী মুনসেফা তৃপ্তি, নাসরিন জান্নাত, ইসরাত জাহান, ফাহমিদা নাজনীনসহ বিভিন্ন পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গ্রিন ভয়েসের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক আলমগীর কবির।

গ্রিন ভয়েসের রংপুর বিভাগের সমন্বয়ক মুনসেফা তৃপ্তি বলেন, ‘নদীকৃত্য দিবসে নদীর কাছে নদীর কথা বলতে এসেছি। বুড়িগঙ্গার পাড়ে এসে দেখেছি এক দুর্গন্ধময় পরিবেশ। নদী পরিবেশ রক্ষায় অপরিহার্য। কিন্তু, প্রকৃতির এই সম্পদের যত্ন নেওয়ার মতো কোনো কার্যক্রম দেখতে পাচ্ছি না।’

তিনি বলেন, ‘নদী দূষণ রোধে আমাদের কাছে পর্যাপ্ত প্রযুক্তি রয়েছে। কিন্তু, তার কোনো কার্যক্রম নেই। বুড়িগঙ্গাসহ দেশের সব নদী দূষণ এবং দখলের মুখে। দিন দিন এ প্রচেষ্টা বেড়েই যাচ্ছে। যদি এখনই নদী দখল রোধ করা না যায় তাহলে অস্তিত্ব হারিয়ে যাবে। আমাদের নদীগুলোকে আমাদেরই রক্ষা করতে হবে।’

গ্রিন ভয়েসের সহ-সমন্বয়ক হুমায়ুন কবির সুমন বলেন, ‘পরিবেশবাদী যুব সংগঠন গ্রিন ভয়েস ২০০৫ সাল থেকে নদীরক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। আমরা সবাইকে বোঝানোর চেষ্টা করে যাচ্ছি যে, অমূল্য সম্পদ নদী রক্ষার দায়িত্ব শুধু সরকারের নয়। আমাদের নাগরিকদেরও এই বিষয়ে আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা নদীরক্ষার জন্য আজ বুড়িগঙ্গার তীরে যুব সমাবেশ করেছি এবং নৌকা মিছিল করেছি। আমরা আজকের এই সমাবেশ থেকে সরকারের প্রতি দাবি জানাতে চাই যে, নদীরক্ষায় যেন দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হয় এবং প্রয়োজনে নদীরক্ষায় যেন আইন প্রয়োগ করা হয়।’

গ্রিন ভয়েসের সমন্বয়ক আলমগীর কবির বলেন, ‘সব বাধা পেরিয়ে নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ এবং সৌন্দর্য যেন আমরা রক্ষা করতে পারি সেজন্য আজ আমরা নদীকৃত্য দিবস পালন করছি। দেশজুড়ে আমাদের সকল ইউনিট আজ এই দিবসটি পালন করছে।’

তিনি বলেন, ‘আজ বুড়িগঙ্গার পানির দিকে তাকালে দেখা যায় আলকাতরার মতো কালো। দূষণের কবলে পরে বুড়িগঙ্গা আজ চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। নদীমাতৃক দেশ আমাদের এই বাংলাদেশে শুধু বুড়িগঙ্গাই নয়, প্রত্যেকটি নদী দূষণ এবং দখলের মুখে রয়েছে। সরকারের কাছে আমরা দাবি জানাই, আইন প্রয়োগ করে দ্রুত নদীগুলোকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য।’